বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১০ ফাল্গুন ১৪৩০
 
শিক্ষাঙ্গন
ঢাবির সাংবাদিকতা বিভাগ: ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ ওঠা শিক্ষকের বিচার চেয়ে দিনভর বিক্ষোভ





নিজস্ব প্রতিবেদক
Sunday, 11 February, 2024
8:18 PM
 @palabadalnet

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক শিক্ষকের বিচার দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ। ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক শিক্ষকের বিচার দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ। ছবি: সংগৃহীত

ঢাবি: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক অধ্যাপকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি ও মানসিক নিপীড়নের অভিযোগ করেছেন একই বিভাগের এক ছাত্রী। এ ঘটনায় বিভাগের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে ওই শিক্ষকের অব্যাহতি ও নিপীড়ন-হয়রানির বিচারের দাবিতে আজ রোববার দিনভর বিক্ষোভ করেছেন বিভাগটির বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। দাবি আদায়ে তারা ক্লাস বর্জন করেছেন এবং এই কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ওই ছাত্রী আজ দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি এ এস এম মাকসুদ কামালের কাছে কিছু তথ্যপ্রমাণসহ লিখিত অভিযোগ করেছেন। এর আগে গতকাল শনিবার প্রক্টর মো. মাকসুদুর রহমানের কাছেও লিখিত অভিযোগ দেন। তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত অধ্যাপকের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠার পর সাংবাদিকতা বিভাগের ওই শিক্ষকের শাস্তি চেয়ে গতকাল রাত থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরব হন বিভাগটির বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। বিভাগের চলমান সব ব্যাচের (১৩, ১৪, ১৫, ১৬ ও ১৭তম ব্যাচ) শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জনের ঘোষণা দেন। আজ সকাল থেকে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবনের নবম তলায় সাংবাদিকতা বিভাগের বারান্দায় অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থী। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন ভবনের দেয়ালে সাঁটানো পোস্টারে ওই শিক্ষককে ‘যৌন নিপীড়ক’ আখ্যা দিয়ে ‘ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত’ও ঘোষণা করা হয়।

বেলা দেড়টার দিকে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবনের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন শিক্ষার্থীরা। মিছিলে তারা ‘নিপীড়কের কালো হাত, ভেঙে দাও গুঁড়িয়ে দাও’ প্রভৃতি বলে স্লোগান দেন। শিক্ষার্থীদের মিছিলটি ভিসির কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। শিক্ষার্থীদের আগেই সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান আবুল মনসুর আহাম্মদসহ কয়েকজন শিক্ষক ভিসির কার্যালয়ে যান। পরে শিক্ষার্থীদের একটি প্রতিনিধিদল ভিসির সঙ্গে কথা বলতে ভেতরে প্রবেশ করেন। অন্যরা ভিসি কার্যালয়ের সামনে থেকে মিছিল নিয়ে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন।

বিভাগের চেয়ারম্যান আবুল মনসুর বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সিন্ডিকেট সদস্যও। তিনি বলেন, “প্রক্টরকে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পরে শিক্ষার্থীরা আমাকে একটি স্মারকলিপি দিয়েছে। পরে বিষয়টি নিয়ে আমি ও বিভাগের দুজন শিক্ষক আজ ভিসির সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে সভা করেছি৷ প্রক্টরও সভায় উপস্থিত ছিলেন। ভিসি সেখানে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদেরও ডেকে নিয়েছেন। ভিসি শিক্ষার্থীদের আশ্বস্ত করেছেন যে এ বিষয়ে দ্রুত একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।”

শিক্ষার্থীরা ভিসির কাছে অভিযুক্ত অধ্যাপককে তাৎক্ষণিকভাবে শিক্ষা কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়ার পক্ষে নানা যুক্তি তুলে ধরেন। পরে বেরিয়ে এসে অপরাজেয় বাংলায় সমাবেশে যোগ দিয়ে প্রতিনিধিদলের পক্ষ থেকে ১৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থী রাফিজ খান বলেন, ভিসি তাদের দাবির ব্যাপারে আশ্বস্ত করতে পারেননি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের ক্লাস বর্জনসহ আন্দোলন-কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

সার্বিক বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, আগামীকাল সোমবারের মধ্যে প্রশাসনের একটি সভা করে শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ও দাবির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

পালাবদল/এসএ


  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  
  এই বিভাগের আরো খবর  


Copyright © 2024
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
নির্বাহী সম্পাদক : জিয়াউর রহমান নাজিম
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৫১, সিদ্ধেশ্বরী রোড, রমনা, ঢাকা-১২১৭
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]